নারায়ণগঞ্জ ফতুল্লায় স্ত্রী হত্যায় স্বামী গ্রেফতার

প্রকাশিতঃ ১১:৫০ অপরাহ্ণ | মে ১৯, ২০২০

মোঃ আরিফুল ইসলাম স্টাফ রিপোর্টার

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলা সুলতানা বেগম (৪২) নামে এক গার্মেন্ট শ্রমিককে হত্যা করার অভিযোগ উঠেছে তারই স্বামী মিজানুর রহমান মজুমদারের (৫২) বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশ অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে।

মঙ্গলবার (১৯ মে) সকাল দশটার দিকে উপজেলার কাশিপুর ইউনিয়নের ভোলাইল গেদ্দার বাজার এলাকায় ঘটেছে। পারিবারিক কলহের জের ধরে ওই গার্মেন্টকর্মীকে শীল পুতা দিয়ে আঘাত করে হত্যা করা হয়েছে বলে পুলিশ জানায়।

সুলতানা বেগম হত্যার ঘটনায় তার ভাই সফিকুল ইসলাম বাদী হয়ে ফতুল্লা মডেল থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। পুলিশ নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করেছে।

ফতুল্লা মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মোহাম্মদ শাহাদাত হোসেন মামলা দায়ের ও গ্রেফতারের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, আমরা নিহতের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ জেনারেল (ভিক্টোরিয়া) হাসপাতালে প্রেরণ করেছি এবং অভিযুক্ত মিজানুর রহমানকে গ্রেফতার করেছি।

মামলা সূত্রে জানা যায়, চাঁদপুর কচুয়া এলাকার বাসিন্দা মিজানুর রহমান মজুমদার তার স্ত্রী সুলতানা বেগম ও ছেলে বাদল ফতুল্লা ভোলাইল গেদ্দার এলাকার একটি টিনসেট বাসায় ভাড়ায় বসবাস করতেন। মিজানুর রহমান বেকার এবং সুলতানা বেগম ক্রোনী গ্রুপে চাকুরি করেন ও ছেলে বাদল গেদ্দার বাজার একটি ডাইংয়ে কাজ করেন।

মামলার সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার সকাল অনুমান ১০টায় তাদের মধ্যে পারিবারিক বিষয় নিয়ে কথা কাটাকাটি হয়। এ সময় মিজানুর রহমান ক্ষিপ্ত হয়ে সুলতানাকে সজোরে রুমে থাকা সুকেসের মধ্যে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয়। এক পর্যায়ে মিজানুর রহমান ঘরে থাকা শীল পুতা দিয়া সুলতানার মাথায় আঘাত করলে সে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। পরে স্থানীয় লোকজন এসে তাকে উদ্ধার করে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল (ভিক্টোরিয়া) হাসপাতাল নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করলে দুপুর সাড়ে ১২টায় সুলতানা বেগম মারা যান