করোনার উপসর্গে নারীর মৃত্যু, স্বামী-ছেলে আক্রান্ত

প্রকাশিতঃ ১০:২৪ পূর্বাহ্ণ | জুন ১৮, ২০২০

পরিমল চন্দ্র বসুনিয়া,লালমনিরহাট প্রতিনিধি:

লালমনিরহাট সদর পৌরসভায় করোনা আক্রান্ত সাবেক কমিশনার সেকেন্দার আলীর স্ত্রী আলেয়া বেগম করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন। মঙ্গলবার রাতে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

মৃতর ছেলে রংপুর রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক করোনা আক্রান্ত এবং তিনি রংপুরে বাসায় অবস্থান করছেন। ছেলেকে দেখতে গিয়ে বাবা মা সংক্রমিত হতে পারেন বলে স্থানীয়দের ধারণা।

স্থানীয়রা জানান, বেশ কিছুদিন ধরে বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত আলেয়া বেগম। এরই মধ্যে তাদের স্বামী-স্ত্রী দুজনের জ্বর ও সর্দি-কাশি হলে বাড়িতে চিকিৎসা নেন তারা। করোনা সন্দেহে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ তাদের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। কমিশনার সেকেন্দার আলীর ফলাফল পজিটিভ আসলেও স্ত্রীর ফলাফল অপেক্ষমান রয়েছে। এরই মধ্যে গত সোমবার বিকেলে শ্বাসকষ্ট দেখা দিলে আলেয়া বেগমকে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়।

সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মঙ্গলবার দিনগত মধ্যরাতে তিনি মারা যান।পরে বুধবার সকালে তার মরদেহ লালমনিরহাট পৌঁছালে এলাকায় বেশ আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। মরদেহ বাড়ির পাশে চাতালে রাখা হলে করোনা সংক্রমণের ভয়ে কেউ কাছে যায়নি।

লালমনিরহাট সিভিল সার্জন ডা. নির্মলেন্দু রায় বলেন, রংপুরে মারা যাওয়া আলেয়ার করোনা রিপোর্ট আসেনি তবে তার স্বামী সাবেক কমিশনার সেকেন্দার আলী করোনা পজিটিভ হয়ে হোম আইসোলেশনে রয়েছেন।